ঢাকা শুক্রবার, ৭ই অক্টোবর ২০২২, ২৩শে আশ্বিন ১৪২৯

মৃদু দাবদাহের কারণে ফসলের ক্ষেত ফেটে চৌচির


প্রকাশিত:
১৭ জুলাই ২০২২ ১৭:৩০

আপডেট:
৭ অক্টোবর ২০২২ ১৭:৩৮

 

আষাঢ় ও শ্রাবণ মাস- এই দুই মাস সাধারণত বৃষ্টি হয়ে থাকে। কিন্তু আবহওয়া পরিবর্তন হওয়ায় দেখে দিয়েছে মৃদু দাবদাহ। ফলে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে উত্তরের জেলা দিনাজপুরে। তীব্র গরমের ফলে সাধারণ মানুষ ছাড়াও বিভিন্ন পশু-পাখি ক্লান্ত হয়ে পড়েছে।


মৃদু দাবদাহের কারণে ফসলের ক্ষেত ফেটে চৌচির হয়ে গেছে। পানির অভাবে আমন ধানের মাঠ ফেটে গেছে। কৃষকরা হালচাষ দিতে পারছেন না। যার ফলে কিছু কৃষকের আমন ধান রোপণ করতে কিছুটা বিলম্ব হচ্ছে।
বৃষ্টি না হওয়ায় অনেক কৃষক গভীর পাম্প অথবা শ্যালো মেশিন দিয়ে আমন ধানের চারা রোপণ করতে বাধ্য হচ্ছেন। প্রচণ্ড রোদের কারণে খেটে খাওয়া মানুষরা মাঠে কাজে যেতে পারছেন না। কিছু সময় মাঠে কাজ করলেই শরীর দিয়ে ঘাম পড়ছে এবং হাঁপিয়ে যাচ্ছেন সবাই।

বোচাগঞ্জ উপজেলা কৃষি অফিস থেকে জানা যায়, ১৬ হাজার ৯০১ হেক্টর জমিতে আমন চাষের লক্ষ্যমাত্র নির্ধারণ করা হয়েছে।

বোচাগঞ্জ উপজেলার ২ নম্বর ইশানিয়া ইউনিয়নের দকচাই গ্রামের কৃষক মো. আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, আষাঢ় ও শ্রাবণ এই দুই মাস বৃষ্টির পানিতে আমরা আমন ধান রোপণ করি। কিন্তু এবার বৃষ্টি না হওয়ায় বাধ্য হয়ে শ্যালো মেশিন দিয়ে পানি তুলে আমন ধান রোপণ করতে হচ্ছে। এতে আমাদের উৎপাদন খরচ বেড়ে যাচ্ছে।

একই উপজেলার ৫ নম্বর ছাতল ইউনিয়নের বনহরা গ্রামের কৃষক উপেন চন্দ্র রায় বলেন, আমি ১১ বিঘা জমিতে আমন ধান রোপণ করি। কিন্তু বৃষ্টি না হওয়ায় এখনো ধান রোপণ করতে পারি নাই। আরো দু-এক দিন দেখব আকাশের পানি পড়তেছে কি না। যদি আকাশের পানি না পড়ে তাহলে ডিপ-টিউবওয়েল (গভীর নলকূপ) পানি দিয়ে আমন ধান লাগাতে হবে।

বোচাগঞ্জ উপজেলার কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মো. আরিফ আফজাল জানান, সাধারণত আষাঢ় ও শ্রাবণ মাস বৃষ্টির পানি দিয়ে আমাদের কৃষকরা আমন ধান রোপণ করে থাকেন। এবার ঠিকমতো বৃষ্টি না হওয়ায় কৃষকরা আমন ধান রোপণ করতে সমস্যায় পড়ছেন। ঠিকমতো সেচ দিলে আমন ধানের তেমন ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা নেই। চিকন জাতের ধান সামান্য একটু দেরি করে রোপণ করলে তেমন ক্ষতি হবে না। এ ক্ষেত্রে আমরা কৃষদের সব ধরনের পরামর্শ প্রদান করছি। আগামী দু-এক দিনের মধ্যে বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

এদিকে, অনাবৃষ্টি থেকে বাঁচতে বৃষ্টির আশায় গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে ৮টায় সেতাবগঞ্জ পৌর ঈদগাহ ময়দানে জাতীয় ইমাম সমিতি বোচাগঞ্জ উপজেলা শাখার আয়োজেন ‘ইসতিসকার’ নামাজ আদায় করেন হাজারো ধর্মপ্রাণ মুসল্লি।


বিষয়:



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top