ঢাকা শুক্রবার, ২৫শে সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১ই আশ্বিন ১৪২৭


গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি, কুয়াশা আর বায়ুদূষণে নাকাল ঢাকা


প্রকাশিত:
২৯ জানুয়ারী ২০২০ ১৯:২৫

আপডেট:
২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১৮:০৫

কুয়াশা আর বায়ুদূষণে ঢাকার আকাশ

পরিবেশ টিভি: কুয়াশা আর বায়ুদূষণে ঢাকার আকাশে আজ সূর্য ওঠেনি। অনেক এলাকায় গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিও হচ্ছে। বায়ুদূষণের সূচকে আজ ঢাকা প্রথম হওয়ার পাশাপাশি দুর্যোগপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে।

এদিকে বুধবার (২৯ জানুয়ারি) ভোরে তাপমাত্রা খুব বেশি না কমলেও বেলা গড়াতেই উত্তর থেকে আসা কনকনে ঠান্ডা বাতাস, আর গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির কারণে ফের তীব্র শীতের কবলে পড়েছে রাজধানীবাসী। আগামীকাল বৃহস্পতিবারও (৩০ জানুয়ারি) একই আবহাওয়া থাকবে। তবে শুক্রবার (৩১ জানুয়ারি) থেকে আবহাওয়ার উন্নতি হতে পারে।

সাগরের গরম বাতাস, জলীয় বাষ্প আর উত্তরের শুষ্ক বাতাসের কারণে হচ্ছে এই বৃষ্টি। আজ দেশের কোনও কোনও এলাকায় গুঁড়ি গুঁড়ি, আবার কোথাও হালকা এবং কোথাও মাঝারি ধরনের বৃষ্টি হতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক বিশ্বের বায়ুমান যাচাইবিষয়ক প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান ‘এয়ার ভিজ্যুয়াল’-এর বায়ুমান সূচকে (একিউআই) বুধবার (২৯ জানুয়ারি) ঢাকা বায়ুদূষণে প্রথম স্থান দখল করেছে। আজ দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে নেপালের কাঠমান্ডু এবং তৃতীয় অবস্থানে আছে দিল্লি। এয়ার ভিজ্যুয়ালের সূচক অনুযায়ী, আজ ঢাকার বায়ুমান সূচক ছিল ৩১৬, কাঠমান্ডুতে ২১৩, আর দিল্লির অবস্থান ১৭৪।

বায়ুদূষণ বিশেষজ্ঞ ও বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনের (বাপা) যুগ্ম সম্পাদক অধ্যাপক ড. কামরুজ্জামান মজুমদার বলেন, ‘১০১ থেকে ১৫০ সূচক হলে সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। ১৫০-২০০ সূচক হলে সেটি অস্বাস্থ্যকর। আর সূচক যদি ২০০ থেকে ৩০০ হয় তাহলে সেটি খুবই অস্বাস্থ্যকর, ৩০০ ওপরে হলে সেটিকে আমরা দুর্যোগপূর্ণ বলি। ঢাকায় আজ যে সূচক তাকে আমরা দুর্যোগপূর্ণ বলবো।’ তিনি বলেন, ‘আকাশে কুয়াশা কিছুটা থাকলেও এখন আকাশের যে পরিস্থিতি, তার জন্য দায়ী প্রধানত বায়ুদূষণ।’

কামরুজ্জামান মজুমদার বলেন, ‘শুধু ইটের ভাটা সরানো আর রাস্তায় পানি দিলেই হবে না। আপাতত রাস্তায় খোঁড়াখুঁড়ির কাজ বন্ধ রাখা দরকার। পাশাশাশি পুরনো যানবাহনও বন্ধ করতে হবে।’ এর সঙ্গে রাস্তায় পানি দেওয়ার পরিমাণ আরও বাড়াতে হবে বলে তিনি মনে করেন।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ছয় ধরনের পদার্থ এবং গ্যাসের কারণে দূষণ বাড়ছে। সবচেয়ে বেশি ক্ষতি করছে ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র ধূলিকণা, অর্থাৎ পিএম ২.৫। এর কারণেই ঢাকায় দূষণ অতিমাত্রায় বেড়ে গিয়ে পরিস্থিতি নাজুক হয়ে উঠছে। অন্যদিকে, এখন পর্যন্ত বৃষ্টির খবর পাওয়া গেছে ঢাকা, ফরিদপুর, যশোর ও চুয়াডাঙ্গা থেকে।
এদিকে আজ দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা তেঁতুলিয়ায় ৯ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। মঙ্গলবার তেঁতুলিয়ায় এ মাত্রা ছিল ৬ দশমিক ৩। অর্থাৎ সেখানকার তাপমাত্রা আজ বেড়েছে তিন ডিগ্রি। কিন্তু বৃষ্টি আর কুয়াশার কারণে ঠান্ডার অনুভূতি বেশি হচ্ছে।

বুধবার আবহাওয়ার ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়—রাজশাহী, ঢাকা, বরিশাল, খুলনা এবং চট্টগ্রাম বিভাগের কিছু কিছু এবং রংপুর, ময়মনসিংহ এবং সিলেট বিভাগের দুই-এক জায়গায় হালকা অথবা গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়া, অন্য এলাকার আকাশ মেঘলাসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। মধ্যরাত থেকে শুক্রবার সকাল পর্যন্ত দেশের কোথাও কোথাও হালকা থেকে মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে। সারাদেশে দিন ও রাতের তাপমাত্রা অপরিবর্তিত থাকবে।

আবহাওয়াবিদ হাফিজুর রহমান বলেন, ‘শুক্রবার পর্যন্ত আবহাওয়া এমনই থাকবে। এরপর তাপমাত্রা কিছুটা বেড়ে পরিস্থিতি ভালো হতে পারে।’ তিনি বলেন, ‘আজকে কিছু এলাকায় বৃষ্টি হচ্ছে। আগামীকালও হবে।’ বৃষ্টি কমে আকাশ পরিষ্কার হওয়ার পর তাপমাত্রা আরও কিছুটা নেমে যেতে পারে বলে তিনি আশঙ্কা প্রকাশ করেন। তবে আপাতত কোথাও শৈত্যপ্রবাহ বইছে না বলে জানান তিনি।


বিষয়: ঢাকা



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top