ঢাকা রবিবার, ৫ই ডিসেম্বর ২০২১, ২১শে অগ্রহায়ণ ১৪২৮


অসময়ে ভাঙন শুরু পদ্মায়


প্রকাশিত:
২৪ নভেম্বর ২০২১ ০০:০০

আপডেট:
৫ ডিসেম্বর ২০২১ ০৫:০৮


ঈশ্বরদীতে সাঁড়া এলাকায় পদ্মা নদীতে ভাঙন শুরু হয়েছে। ভাঙনে ইতোমধ্যেই চর এলাকার বেশ কিছু অংশ নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। পদ্মায় হঠাৎ ভাঙন শুরু হওয়ায় ২০১৭ সালে দুই'শ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত রক্ষা বাঁধ হুমকির সম্মুখীন হয়ে পড়েছে। এতে আতংকিত হয়ে পড়েছে পদ্মা পাড়ের বাসিন্দারা।

মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) সরেজমিনে ভাঙন কবলিত এলাকায় দেখা যায়, নদীর গতিপথ পরিবর্তন হওয়ায় বাঁধের সামনের চর এলাকায় ভাঙন শুরু হয়েছে। এই সময় আতংকিত এলাকাবাসীরা জানান, গত ৩ দিন ধরে সাঁড়ার ব্লকপাড়া, থানা পাড়া ও ইসলামপাড়া এলাকার কিছু অংশ ব্যাপকভাবে ভেঙে নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে। লম্বায় ২০০ মিটার ও প্রস্থে ৫০ জুড়ে ভাঙনে প্রায় ৩০ একর জমি নিশ্চিহ্ন হয়েছে। এলাকাবাসীর অভিযোগ ২০১৭ সালে রক্ষা বাঁধ নির্মাণের সময় নদীর তীর সংরক্ষণ কাজ বা প্রটেক্টিভ ওয়ার্ক ত্রুটিপূর্ণ হওয়ায় এই ভাঙন দেখা দিয়েছে। তীর এলাকায় নদীর গভীরে ব্লক ও বালুর বস্তা নিয়মানুযায়ী ডাম্পিং করা হয়নি। আবার কেউ কেউ অভিযোগ করেন, অপরিকল্পিত ভাবে এই এলাকায় প্রতিদিন শত শত ট্রাক বালু উত্তোলনের জন্য এই অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।


এসময় উপস্থিত পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা ভাঙনে বাঁধের ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা নেই জানিয়ে বলেন, নিয়মানুযায়ী ডাম্পিং করা হয়েছে। নদীর অপর প্রান্তের কিছুটা আগে জেগে উঠা চরে নদীর গতিপথ পরিবর্তন হয়েছে। এখন নদীর স্রোত সরাসরি প্রবাহিত না হয়ে এই এলাকায় এসে আছড়ে পড়ায় ভাঙন শুরু হয়েছে। ভাঙন ঠেকাতে হলে নদীর গতিপথ পরিবর্তন করতে হবে। গতিপথ পরিবর্তনের জন্য দ্রুত ওই চর এলাকা জুড়ে ড্রেজিং করে স্রোতের গতিপথ পরিবর্তন করতে হবে।

এদিকে মঙ্গলবার দুপুরে পাবনা-৪ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব নূরুজ্জামান বিশ্বাস জরুরীভাবে পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তাদের নিয়ে ভাঙন এলাকা পরিদর্শন করেন। তিনি বলেন, বাঁধ নির্মাণের আগে এই এলাকার শত শত বিঘা জমি, বাড়ি-ঘর, ফসলী জমি নদী গর্ভে বিলীন হয়েছে। এলাকার মানুষ আর যেন ক্ষতিগ্রস্ত না হয়, এজন্য পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তাদের দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।


এসময় উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব নায়েব আলী বিশ্বাস, পৌর মেয়র ইসাহক আলী মালিথা, জেলা আওয়ামী লীগের নেতা সৈয়দ আলী জিরু,পানি উন্নয়ন বোর্ডের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মোহাম্মদ সাইফুল্লাহ, নির্বাহী প্রকৌশলী রফিকুল আলম চৌধুরী, উপজেলা নির্বাহী অফিসার পি এম ইমরুল কায়েস, ভাইস চেয়ারম্যান আতিয়া ফেরদৌস কাকলি, সাঁড়ার চেয়ারম্যান এমদাদুল হক রানা সরদার, কৃষকলীগ নেতা মুরাদ মালিথাসহ বিপুল সংখ্যক এলাকাবাসী উপস্থিত ছিলেন।


বিষয়:



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top