ঢাকা মঙ্গলবার, ১৫ই জুন ২০২১, ২রা আষাঢ় ১৪২৮


অসংখ্য বাবুই পাখি পুড়িয়ে হত্যা; এ যেনো প্রকৃতির সাথে সহিংসতা


প্রকাশিত:
১১ এপ্রিল ২০২১ ২১:৩২

আপডেট:
১১ এপ্রিল ২০২১ ২১:৩৭

 

ঝালকাঠিতে খেতের ধান খাওয়ায় অন্তত ৩৩টি বাবুই পাখির ছানাকে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে নলছিটি উপজেলার ভৈরবপাশা ইউনিয়নের ঈশ্বরকাঠি গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

অবশ্য প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, ঘটনাস্থল থেকে ৩৩টি মৃত ছানা উদ্ধার হলেও আরও বেশি সংখ্যক ছানা মারা পড়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শুক্রবার দুপুরে ঈশ্বরকাঠি গ্রামের জালাল সিকদারের খেতের ধান খাওয়ায় ওই এলাকার সিদ্দিক মার্কেটের সামনের তাল গাছে থাকা বাবুই পাখির ১১টি বাসায় আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। বাঁশের মাথায় কাপড় পেঁচিয়ে সেখান আগুন ধরিয়ে বাবুই পাখির বাসায় আগুন দেওয়া হয়। এতে গাছে থাকা বাবুই পাখির ৩৩টি ছানা পুড়ে মারা যায়।
বাবুই পাখির বাসায় বাঁশের মাধ্যমে আগুন জ্বালিয়ে ছানাদের পুড়িয়ে মারার কথা খেতের মালিক জালাল সিকদার প্রথম আলোর কাছে স্বীকার করেছেন। তিনি বলেন, ‘আমার খেতের ধান প্রতিদিন পাখি খেয়ে ফেলায় লোকসানের মুখে পড়েছি। এ জন্য মেজাজ গরম থাকায় পাখির বাসা নষ্ট করেছি। আমি এ জন্য অনুতপ্ত।’
স্থানীয় বাসিন্দা মজিবর রহমান বলেন, ‘এমন জঘন্য কাজ করা ঠিক হয়নি। বাবুই পাখির ধান খাওয়ার অপরাধে ছানাগুলোকে এমন শাস্তি দিতে হবে?’
এলাকার পাখিপ্রেমী অভিজিৎ বলেন, এমনিতেই বাবুই পাখির সংখ্যা কমে যাচ্ছে। এমন নিষ্ঠুর কাজের জন্য অপরাধীর বিচার দাবি করছি। তিনি জানান, আজ শনিবার ঝালকাঠি বন বিভাগকে লিখিতভাবে এ বিষয়ে অভিযোগ দিয়েছেন।
ঝালকাঠি সদর উপজেলা বন কর্মকর্তা কার্তিক চন্দ্র মণ্ডল বলেন, ‘এটা যদিও খুলনা বন ও বন্য প্রাণী বিভাগের আওতায়। আমাদের ঝালকাঠি অফিস হলো সামাজিক বন বিভাগের। তবুও আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি।’
নলছিটি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রুম্পা সিকদার বলেন, বিষয়টি জানার পর থানার ওসিকে বলেছি ব্যবস্থা নিতে। ওই ব্যক্তিকে ধরার জন্য অভিযান চলছে।
সূত্র: প্রথম আলো

 




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top