ঢাকা বৃহঃস্পতিবার, ২০শে জানুয়ারী ২০২২, ৮ই মাঘ ১৪২৮

ক্যাটাগরি ৫ হয়ে আছড়ে ফিলিপাইনে পড়েছে টাইফুন রাই 


প্রকাশিত:
১৬ ডিসেম্বর ২০২১ ২২:৪৭

আপডেট:
২০ জানুয়ারী ২০২২ ০৭:০৭

 

টাইফুন রাই দ্রুত তীব্রতর হয়ে ক্যাটাগরি ৫ ঘূর্ণিঝড়ে রূপান্তরিত হয়েছে।বৃহস্পতিবার (১৬ই ডিসেম্বর) এই ক্যাটাগরি ৫ এ রুপান্তরিত হয়ে দক্ষিণ ফিলিপাইন এ আঘাত হানে,ফলে সেখানে ভূমিধ্বস হয়। বন্যার জল নিম্নাঞ্চলের বাসিন্দাদের বুক-উচ্চতায় উঠে গিয়েছে।বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে বিমান চলাচল।

ফিলিপাইনের আবহাওয়া ব্যুরোর মতে, এটি এই বছর ফিলিপাইনে আঘাত হানা ১৫তম টাইফুন। প্রতি ঘন্টায় ১৯৫ কিঃমিঃ(১২১ মাইল) বেগে এই ঘুর্ণিঝড়টি সুরিগাও দেল নর্তে প্রদেশের উপর নিজের সর্বোচ্চ বেগে বয়ে গেছে।

প্রায় ১ লক্ষ মানুষ ইতোমধ্যেই নিরাপদ আশ্রয়ের খোঁজে ঘরবাড়ি ছাড়া হয়েছে। এটি এই বছর এই দেশে আঘাত হানা দ্বিতীয় শক্তিশালী ঘুর্ণিঝড়।কিছু এলাকায় বিদ্যুৎ বিভ্রাট ও বন্যার খবর ছাড়া কোন হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে দেশটির দূর্যোগ সংস্থা। ফিলিপাইন কোস্ট গার্ডের শেয়ার করা একটা ফুটেজ এবং রয়টার্স এর বরাত দিয়ে দেখা যায়, উদ্ধারকারীরা মিন্দানাও এর উত্তর উপকূলে কাগায়ন দে ওরো শহরে বাসিন্দাদের রাবার বোটে করে নিয়ে যাচ্ছে এবং নিজেরা বুক সমান পানির মধ্যে দিয়ে হেঁটে পার হচ্ছেন।

ফিলিপাইনের রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির চেয়ারম্যান রিচার্ড গর্ডন জানান,আগের ঝড়,বন্যা,কোভিড সব মিলিয়ে গত বছর থেকে লক্ষ মানুষের জীবন অসার প্রায় হয়ে গিয়েছে। এরপর এই ঘুর্নিঝড় যেন গোদের উপর বিষ ফোঁড়া।

হাজার হাজার জাহাজ বন্দরে আটকে আছে, এয়ারলাইন্স কয়েক ডজন ফ্লাইট বাতিল করেছে, মধ্য ও দক্ষিণ ফিলিপাইনে স্থল ও সমুদ্র ভ্রমণ নিষিদ্ধ করেছে কর্তৃপক্ষ।

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার বেশিরভাগ জায়গাগুলো মিলে একটি বড় গণটীকার অভিযান শুরু করা হয়েছিল,যা স্থগিত করা হয়েছে।

সূত্রঃ বার্তা ২৪


বিষয়:



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top